সর্বশেষ

  চুয়াডাঙ্গায় মহিষের শিংয়ে প্রাণ গেল মালিকের   কুবিতে ভর্তির আবেদন ১ সেপ্টেম্বর   তিন দিনের সফরে ঢাকায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী   ডেঙ্গুতে পাঁচ জেলায় আরও ৭ জনের মৃত্যু   বিয়ানীবাজার পৌরসভার উদ্যোগে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন   বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রশাসনের জাতীয় শোক দিবস পালন   ঢাকা মেডিকেল এলাকায় এডিস মশার আবাসস্থল ধ্বংস করলো যুব ইউনিয়ন   এডিস মশা পানিতে ডিম পাড়ে না, জানালেন বিশেষজ্ঞ   রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সবাই রাষ্ট্রের চাকর: হাই কোর্ট   মুসলিমদের গরু কুরবানি দিতে নিষেধ করলেন মন্ত্রী!   বিনা পারিশ্রমিকেই খেলবে জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা   সিলেটেও ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে ডেঙ্গু, ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত ৫৩ জন   সুপ্রিয় চক্রবর্তী রঞ্জু আর নেই   যার ফোনে ফেরি ছাড়তে দেরি তিনিই করলেন তদন্ত কমিটি!   মুসলিম নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় সৌমিত্র-অপর্ণার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা

কৃষি

পেঁপে উৎপাদনে অধিক মুনাফা পেলেন সিলেটের চাষীরা

প্রকাশিত : ২০১৯-০৪-০৮ ১২:১৫:২৬

রিপোর্ট : সাত্তার আজাদ, সিলেট


শীতের সবজি পেঁপে উৎপাদন করে সিলেটের একাধিক কৃষি পরিবার অধিক মুনাফা পেয়েছেন। সিলেটে উৎপাদিত কাঁচা পেঁপের পাশপাশি পাকা পেঁপেও বিক্রি হচ্ছে বাজারে।


সিলেটে এক সময় জেলার বাইরে থেকে পেঁপে আমদানি করা হত। স্থানীয়ভাবে ফলন কম হওয়াতে চাহিদা মেটাতে দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে পেঁপে নিয়ে আসা হত। গত কয়েক বছর ধরে সিলেটে পেঁপে উৎপাদন বেড়েছে। বাজারে এই সবজির দাম বাড়ার সাথে উৎপাদনে আগ্রহী হচ্ছেন চাষিরা।
 সিলেটে পেঁপেকে ‘কফল’ বা ‘কয়ফল’ বলা হয়। এক সময় সিলেটে বাসাবাড়িতে দু’একটা পেঁপে গাছ ছিল। শখ করে লাগানো হত এবং পেঁপে ধরলে পাকার পর খাওয়া হত। কিন্তু এখন সিলেটে বাণিজ্যিকভাবে পেঁপে চাষ শুরু হয়েছে। উন্নত মানের ওষুধী গুণাগুন সমৃদ্ধ সবজি পেঁপের দাম বাজারে বেড়ে যাওয়াতে উৎপাদনও বেড়েছে। ফলে পেঁপে চাষ করে সফলতাও পেয়েছেন স্থানীয় চাষিরা।

সিলেটের জৈন্তাপুর, বিশ্বনাথ, বালাগঞ্জ ও ফেঞ্চুগঞ্জে বাণিজ্যিকভাবে পেঁপের চাষ হচ্ছে। চাষিরা জানান, পেঁপে চাষে বিঘাপ্রতি খরচ হয় ১০/১২ হাজার টাকা। ফলন ভালো হলে সেখান থেকে উৎপাদিত পেঁপে লাখ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হয়। পরিচর্যা করলে একেকটি পেঁপের ওজর আড়াই কেজি পর্যন্ত হয়। পেঁপের চারা রোপণের সময় আগষ্ট মাস।

বর্তমানে সিলেটের বাজারে কাঁচা পেঁপে ২০-২৫ টাকা এবং পাকা পেঁপে ৬০-৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। শাহী জাতসহ স্থানীয় উচ্চ ফলনশীল জাতের পেঁপে চাষ করে সফলতা পেয়েছেন স্থানীয় চাষিরা। পেঁপে চাষে রোগবালাই কম। তবে পাখির উপদ্রপ থেকে পাকা পেঁপে রক্ষা করে রাখতে কিছুটা কষ্ট হয়। চাষিরা প্লাস্টিকের বস্তা দিয়ে বড় আকৃতির পেঁপে ঢেকে রাখেন পাকার সময় পর্যন্ত। অন্যান্য ফসলের চেয়ে পরিশ্রম কম আবার লাভ বেশি এ কারণে পেঁপে চাষে ঝুকছেন চাষিরা।

সিলেট কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আঞ্চলিক কার্যালয়ের অতিরিক্ত পরিচালক মো. আলতাবুর রহমান জানান, উন্নত মানের সবজি হচ্ছে পেঁপে। আগে সিলেটে কম চাষ হত। এখন উন্নত ফলনশীল জাতের পেঁপে চাষে বেশি লাভ দেখে উৎপাদনে ঝুকছেন চাষিরা। তিনি উদাহরণ টেনে বলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলার শাসন গ্রামের আসাদুর রহমান রেড লেডি, এবং ইন্ডিয়ান শাহী জাতের পেঁপে চাষ করেন ৯ বিঘা জমিতে। এতে খরচ হয় তিন লাখ টাকা। আর লাভ করলেন ১০ লাখ টাকা।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF


মতামত দিন

Developed By -  IT Lab Solutions Ltd. Helpline - +88 018 4248 5222