সর্বশেষ

  ছাত্রদলের নতুন কমিটির কার্যক্রমে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা   সিলেট চেম্বারের নতুন সভাপতি শোয়েব, সহ সভাপতি চন্দন ও তাহমিন   মৌলভীবাজারের মেয়ে পিংকি বাংলাদেশ বিমানের ক্যাপ্টেন   হবিগঞ্জে একযোগে ১৪৩ শহীদ মিনার উদ্বোধন   এবার অভিযান সিলেটের ক্লাবপাড়ায়   নারায়ণগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বাড়ি ঘেরাও   ক্যাসিনোর পাশাপাশি স্পা সেন্টারেও পুলিশের অভিযান   লন্ডনে বাড়ছে ঘরহীনের সংখ্যা, ডাস্টবিন থেকে খাবার কুড়িয়ে খাচ্ছে মানুষ   আগারগাঁও পাসপোর্ট অফিসে দুদকের অভিযান   বিয়ানীবাজারে নবাগত ইউএনও হিসেবে যোগদান করলেন মৌসুমী মাহবুব   মৌলভীবাজারে ১০১৪ মণ্ডপে হবে শারদীয় দুর্গাপূজা   জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের নতুন চেয়ারম্যান নাছিমা বেগম   মোহামেডান–ভিক্টোরিয়াসহ চার ক্লাবে ক্যাসিনো আছে জানত না পুলিশ   রুবেল মুর্মুকে আহ্বায়ক করে জয়পুর – মাদারপুর (আদিবাসী সাঁওতাল পল্লীতে ) ছাত্র ইউনিয়নের কমিটি   মইনুদ্দিন জালালের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালনে কমিটি গঠন

বিয়ানীবাজার

ছদ্মবেশে বিয়ানীবাজার থেকে আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত : ২০১৯-০৯-০৫ ১১:২৪:৪৩

রিপোর্ট : দিবালোক প্রতিবেদক

বোরকা পরে নারী সেজে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত এক পলাতক আসামিকে ২০ বোতল অফিসার্স চয়েস মদসহ গ্রেপ্তার করেছে সিলেট জেলা পুলিশের মাদকবিরোধী সেল। গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির নাম আব্দুস সত্তার ওরফে কটাই মিয়া (৪৫)। সে বিয়ানীবাজার উপজেলার দত্তপাড়া এলাকার সাজ্জাদ আলীর ছেলে।মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) বেলা আড়াইটার দিকে বিয়ানীবাজার উপজেলার দত্তপাড়া গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) মো. আমিনুল ইসলাম।পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তার আব্দুস সত্তার ওরফে কটাই মিয়া ১৯৯৫ সালের একটি মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। কিন্তু সে দীর্ঘদিন থেকেই পলাতক। এমনকি সে তার পরিচয় গোপন রেখে ছদ্ম নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। গত ২৫ আগস্ট বিয়ানীবাজার থানা পুলিশের মাদক বিরোধী সেলের একটি দল তার বাড়িতে অভিযান চালিয়েও তাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এসময় তার বাড়ি থেকে ৫০ বোতল ভারতীয় অফিসার্স চয়েস মদ উদ্ধার করে। অবশেষে মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিলেট জেলা পুলিশের মাদকবিরোধী সেলের অফিসার্স ইনচার্জ সজল কোমার কানুর নেতৃত্বে একদল পুলিশ বোরকা পরে নারী সেজে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। এসময় তার বাড়ি থেকে ২০ বোতল ভারতীয় অফিসার্স চয়েস মদ উদ্ধার করা হয়।গ্রেপ্তার ব্যক্তিকে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) মো. আমিনুল ইসলাম।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF


মতামত দিন

Developed By -  IT Lab Solutions Ltd. Helpline - +88 018 4248 5222