সর্বশেষ

  চুয়াডাঙ্গায় মহিষের শিংয়ে প্রাণ গেল মালিকের   কুবিতে ভর্তির আবেদন ১ সেপ্টেম্বর   তিন দিনের সফরে ঢাকায় ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী   ডেঙ্গুতে পাঁচ জেলায় আরও ৭ জনের মৃত্যু   বিয়ানীবাজার পৌরসভার উদ্যোগে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালন   বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রশাসনের জাতীয় শোক দিবস পালন   ঢাকা মেডিকেল এলাকায় এডিস মশার আবাসস্থল ধ্বংস করলো যুব ইউনিয়ন   এডিস মশা পানিতে ডিম পাড়ে না, জানালেন বিশেষজ্ঞ   রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সবাই রাষ্ট্রের চাকর: হাই কোর্ট   মুসলিমদের গরু কুরবানি দিতে নিষেধ করলেন মন্ত্রী!   বিনা পারিশ্রমিকেই খেলবে জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা   সিলেটেও ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে ডেঙ্গু, ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত ৫৩ জন   সুপ্রিয় চক্রবর্তী রঞ্জু আর নেই   যার ফোনে ফেরি ছাড়তে দেরি তিনিই করলেন তদন্ত কমিটি!   মুসলিম নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় সৌমিত্র-অপর্ণার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহের মামলা

বিচিত্র খবর

প্রাণীর চেয়ে দ্বিগুণ গতিতে বিলুপ্ত হচ্ছে উদ্ভিদ প্রজাতি

প্রকাশিত : ২০১৯-০৬-১১ ২০:৪৭:৪৫

রিপোর্ট : দিবালোক ডেস্ক


বিগত ২৫০ বছরে প্রায় ৬০০ প্রজাতির গাছ বিলুপ্ত হয়ে গেছে বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। এই সংখ্যা সমস্ত প্রাণিকুলের প্রজাতির বিলুপ্তির চেয়েও দ্বিগুণ। বিজ্ঞানীরা বলেন, স্বাভাবিকের চেয়ে ৫০০ গুণ বেশি গতিতে উদ্ভিদ বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। গবেষকরা বলেন, তারা এই বিলুপ্তির সংখ্যা নথিবদ্ধ করে তুলে ধরতে চেয়েছেন যে, ভবিষ্যতে আমাদের কী করা উচিত। এ বছর মে মাসে জাতিসংঘের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ১০ লাখ জীব প্রজাতি বিলুপ্তির ঝুঁকিতে রয়েছে। 
রয়্যাল বোটানিক গার্ডেন এবং স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক জানান, বিগত ২৫০ বছরে ৫৭১টি উদ্ভিদ প্রজাতি বিলুপ্ত হয়েছে। এই সময়ে পাখি, স্তন্যপায়ী আর উভচর মিলে বিলুপ্তির সংখ্যা ২১৭ প্রজাতি। ফলে উদ্ভিদ প্রজাতির বিলুপ্তির হার দ্বিগুণেরও বেশি। স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. অ্যালিস হামফ্রেস বলেন, বিগত শতাব্দীতে বিলুপ্ত হওয়া প্রাণী বা পাখির নাম অনেকেই বলতে পারবেন। আমাদের গবেষণায় আমরা তুলে ধরেছি, কোন গাছগুলো ইতোমধ্যে বিলুপ্ত হয়ে গেছে এবং কত দ্রুত বিষয়টা ঘটেছে। উপকূলীয় অঞ্চল ও দ্বীপেই সবচেয়ে বেশি উদ্ভিদ প্রজাতি বিলু্‌প্ত হয়েছে বলে জানানো হয় প্রতিবেদনে। তবে গবেষকদের ধারণা, উদ্ভিদ প্রজাতির বিলুপ্তির ভয়াবহতা এই সংখ্যার মাধ্যমে তুলে ধরা সম্ভব নয়। তবে এর মাঝে আশার বাণীও শুনিয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তারা বলেন, চিলিয়ন ক্রোকাসের মতো বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া উদ্ভিদ প্রজাতিকে আবারও কোথাও কোথাও দেখা গেছে।

পৃথিবীর সমস্ত প্রাণিকুলই অক্সিজেন ও খাবারের জন্য উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল। উদ্ভিদের বিলুপ্তিতে তার ওপর নির্ভরশীল প্রাণীও বিলুপ্ত হয়ে যেতে পারে। যেমন কিছু কীট-পতঙ্গ, যারা গাছের পাতার ওপর নির্ভরশীল। রয়্যাল বোটানিক গার্ডেনের গবেষক ও বিজ্ঞানী ড. আইমার নিক ‍লুগাদা বলেন, উদ্ভিদের বিলুপ্তি সবার জন্যই খারাপ খবর। তিনি বলেন, মানুষসহ লাখ লাখ প্রাণী উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল। তাই কোনও উদ্ভিদের বিলুপ্তি হচ্ছে জেনে আমাদের বিকল্প প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে হবে।

উদ্ভিদ প্রজাতির বিলোপ ঠেকাতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন গবেষকরা। এরমধ্যে বিশ্বজুড়ে সব গাছের রেকর্ড রাখা, গাছের প্রজাতি সংরক্ষণ, আরও গবেষণা এবং শিশুদের গাছ চিনতে শেখানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ড. রোব স্লাগেরো-গোমেজ বলেন, আমরা আমাদের আহার-আশ্রয়ের জন্য সরাসরি উদ্ভিদের ওপর নির্ভরশীল। বাস্তুসংস্থানেও উদ্ভিদের বিকল্প নেই।
সুত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF


মতামত দিন

Developed By -  IT Lab Solutions Ltd. Helpline - +88 018 4248 5222