সর্বশেষ

  কবি হেলাল হাফিজ হাসপাতালে   সিলিং ফ্যানের দাম এক লাখ টাকা!   শুনতে কি পাও কৃষকের কান্না   আজ রক্তে ভেজা ২০ মে : মহান চা-শ্রমিক দিবস   একটি অন্য রকম প্রতিবাদ   হুয়াওয়ের শীর্ষে পৌঁছানোর স্বপ্ন গুড়িয়ে দিলো গুগল?   মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই ছয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মী; হতাশ বিশ্বজিতের পরিবার   বুধবার থেকে পাটকল শ্রমিকদের ৬ ঘণ্টা সড়ক-রেলপথ অবরোধ   সাগরে যাবে বিয়ানীবাজারের দুই শতাধিক তরুণ   র‍্যাবের অভিযানে বিয়ানীবাজার দু'জন গ্রেফতার   ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে কেন এই রক্তারক্তি   ৯৫ ভাগ জাতীয় আয় চলে যাচ্ছে ৫ ভাগ মানুষের হাতে   যুক্তরাষ্ট্রের চেয়েও খরচ বেশি বাংলাদেশের শিক্ষায়   হাজী আব্দুস সাত্তার শপিং কমপ্লেক্স মালিকপক্ষে'র ইফতার সামগ্রী বিতরণ   অনন্ত হত্যার বিচার বিশেষ ট্রাইব্যুনালে করার দাবি

আন্তর্জাতিক

সোলিহের শপথে যেতে চান মোদি, ক্ষমতা হস্তান্তরে সংশয়

প্রকাশিত : ২০১৮-০৯-৩০ ১৬:১১:২৮

রিপোর্ট : দিবালোক ডেস্ক

ছবি- সংগৃহীত

তিন বছর আগে মালদ্বীপে যাওয়ার কথা ছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির। কিন্তু যেতে পারেননি দেশটির উত্তাল রাজনৈতিক পরিস্থিতির জন্য।এবার সব ঠিক থাকলে মালদ্বীপে নতুন সরকারের শপথগ্রহণের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মোদি।ভারতের কূটনৈতিক সূত্রের খবর, প্রথম দিনেই মালদ্বীপে উপস্থিত থেকে চীনকে বার্তা দিতে চায় ভারত। তবে এখনও কিছুটা সংশয়ের মেঘ রয়েছে সে দেশে নতুন সরকার গড়ার পথে।-খবর আনন্দবাজারপত্রিকা অনলাইনের।ভোটে হেরে গেলেও বিদায়ী প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন একবার শেষ চেষ্টা করতে পারেন ক্ষমতা আঁকড়ে রাখার। আড়াল থেকে এ কাজে তাকে সাহায্য করতে পারে চীন।বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যৌথ বিরোধী দল। সূত্রের খবর, ইয়ামিন নির্বাচন কমিশনের কাছে গিয়ে অভিযোগপত্র দাখিল করার পরিকল্পনা করছেন। অভিযোগটি হল- ভোটে ব্যাপক কারচুপি করেছে বিরোধীরা।দেশের গোয়েন্দা বিভাগকে সঙ্গে নিয়ে এ ব্যাপারে একটি রিপোর্টও তৈরি করিয়েছেন ইয়ামিন। সেই রিপোর্টে এ কারচুপির অভিযোগ সাজানো হবে বলে জানা গেছে।ভারত মনে করছে, গোটা বিষয়টিতে আড়ালে সক্রিয় রয়েছে বেইজিং। ইয়ামিন সরকার সরে গেলে সেখানে ভারতের প্রভাব যে বাড়বে, চীন সেটি মেনে নিতে পারছে না। ইতিমধ্যে তারা সেখানে বিপুল লগ্নি করে ফেলেছে।প্রতিরক্ষা তথা সামরিকভাবেও এ দ্বীপরাষ্ট্রকে অনেকটাই মুঠোয় পুরে ফেলতে পেরেছে গত কয়েক বছরে। ফলে ভূকৌশলগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ মালদ্বীপে আধিপত্য কায়েম রাখার টক্করে ভারতের কাছে এত সহজে হার মানতে রাজি নয় ড্রাগনের দেশ।কোণঠাসা প্রতিবেশী বলয়ে মালদ্বীপই পারে ভারতকে কিছুটা অক্সিজেন জোগাতে। এ অবস্থায় সরাসরি কিছু করতে না পারলেও মোদি সরকার মালদ্বীপ নিয়ে কোন পথে চলে, এখন সেটিই দেখার।

শেয়ার করুন

Print Friendly and PDF


মতামত দিন

Developed By -  IT Lab Solutions Ltd. Helpline - +88 018 4248 5222