আজ শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

সাহিত্য-সংস্কৃতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৫ জুলাই, ২০১৯ ২৩:৫১

বিয়ানীবাজারে তাঁত বস্ত্র ও কুটির শিল্প মেলার উদ্বোধন


সিলেট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান বলেন, আবহমান বাংলার অন্যতম ঐতিহ্য ছিল গ্রামীণ মেলা গুলো। এক সময় গ্রাম বাংলার প্রত্যেকটি অঞ্চলে নানা উপলক্ষে মেলা বসত। শিশু থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত সকল বয়সের নারী পুরুষ মেলায় যেতো। হরেক রকম পণ্যের পসরা থাকত মেলা গুলোতে। অনেক আনন্দ হতো। অতীতের মতো আধিক্য না থকালেও এখনও বিভিন্ন স্থানে মেলা বসে। বাংলার গ্রামীণ মেলা গুলো বাণিজ্যের সাথে বিনোদনও দিয়ে থাকে। যা মানুষের বিশেষ করে  নতুন প্রজন্মকে নির্মল আনন্দ দেয়, নিজ সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। বিয়ানীবাজারের এই মেলাও স্থানীয়দের জন্য কল্যাণকর হবে এই প্রত্যাশা। শুক্রবার বিয়ানীবাজার পৌরসভাস্থ সুপাতলা উসমানী স্টেডিয়ামে তাঁত বস্ত্র ও কুটির শিল্প মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন। 

বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতি ইউ.এ.ই এর সভাপতি লুৎফুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মেলার উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কানাডা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও দৈনিক শুভ প্রতিদিন পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক সরওয়ার হোসেন। উদ্বোধকের বক্তব্যে সরওয়ার হোসেন বলেন, প্রবাসী অধুষ্যিত আমাদের এই অঞ্চল এক সময় শিল্প, সাহিত্য, সংস্কৃতির চারণ ভূমি ছিল। কালের পরিক্রমায়  প্রবাস মুখিতায় অতীতের ঐতিহ্যে কিছুটা ভাটা পড়লেও এখনও এ অঞ্চলের মানুষ সে ধারায় পরিচালিত হচ্ছে। 

এখানকার শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতির চর্চা এখনো অন্য অঞ্চলের তুলানায় অনেক এগিয়ে। এখানকার মানুষ আধুনিকতায় যেমন এগিয়ে তেমনি নিজস্ব সংস্কৃতি লালনেও পিছিয়ে নেই। সে ধারাবাহিকতায় আবহমান বাংলার গ্রামীণ ঐহিত্য এসকল মেলার আয়োজন। তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়নের রোল মডেল হয়ে। আমাদের এ অঞ্চলের মানুষের জীবন যাত্রার মান আরো উন্নত হউক, সমৃদ্ধ হোক এটা আমি চাই। সে লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি আপনাদের পাশে থেকে। আপনাদের উন্নয়নে আমার চলমান প্রচেষ্ঠা অব্যাহত থাকবে।  

মেলা আয়োজক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মিলাদ মোঃ জয়নুল ইসলাম এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সুমন আহমদ এর যৌথ পরিচারনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য নজরুল হোসেন, মহিলা সদস্য হাসিনা বেগম, বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকসানা বেগম লিমা।



শেয়ার করূন

আপনার মতামত