আজ সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ ইং

রাজনীতি

দিবালোক ডেস্ক

২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:১৪

‘হিযবুত তাহরিরের নতুন টার্গেট’ সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়!


এ যেন রীতিমতো আঁতকে ওঠার মতো খবর। সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হিযবুত তাহরিরের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশের দাবি, তারা হিযবুত তাহরিরের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকারও করেছেন।

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন সময়ে জঙ্গিবাদে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। শাবির একাধিক শিক্ষার্থী নিষিদ্ধ ঘোষিত আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সাথে জড়িত বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্তে বেরিয়ে আসে। 

শাবির পর এবার জঙ্গি সংক্রান্ত ঘটনায় নাম জড়ালো সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি)। একসাথে তিন ‘জঙ্গিকে’ গ্রেফতারের পর সিকৃবিকেন্দ্রীক জঙ্গি তৎপরতার বিষয়ে বাড়তি নজর দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পুলিশ জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে ‘সরকারবিরোধী’ লিফলেট বিতরণের সময় শাহপরান থানা পুলিশ সিকৃবির তিন শিক্ষার্থীকে আটক করে। তারা হলেন সিকৃবির কৃষি অর্থনীতি ও ব্যবসায়ী শিক্ষা বিভাগের মাহফুজুর রহমান প্রতীক (২৩) ও জুবায়ের আলম বাপ্পী (২১) এবং ডক্টর অব ভেটেনারি মেডিসিন বিভাগের আনোয়ারুল ইসলাম খোকন (২১)। প্রতীক ও খোকনের বাড়ি ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ থানায়, বাপ্পীর বাড়ি নেত্রকোণার সদর থানায়।

আটকের পর সন্ত্রাসবিরোধী আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে গ্রেফতার দেখানো হয়। পরে আদালতের মাধ্যমে এ তিনজনকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, তিন শিক্ষার্থী হিযুবত তাহরিরের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি গোচরে আসার পর সিকৃবির দিকে বাড়তি নজর দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের আর কোনো শিক্ষার্থী জড়িত কিনা, অন্য কোনো জঙ্গি সংগঠন এখানে তৎপরতা চালাচ্ছে কিনা, তা জানার চেষ্টা করছেন তারা।

এ প্রসঙ্গে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা সিলেটভিউকে বলেন, ‘আমরা এখন সিকৃবির দিকে বাড়তি নজর দিচ্ছি। শুধু সিকৃবিই নয়, শাবি, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দিকে আমাদের নজর আছে। বিভিন্ন মেসের দিকেও আমরা খেয়াল রাখছি।’

‘নির্বাচনকে সামনে রেখে জঙ্গি কর্মকাণ্ডের প্রতি বাড়তি নজর দেয়া হচ্ছে’ বলেও মন্তব্য করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। 

শেয়ার করূন

আপনার মতামত